কৌতুক

মারাত্মক একটা প্রেম পত্র

প্রিয় লাইলী ……..
…………… ………. পত্রের প্রথমে এক বোতল সালফিউরিক এসিডের মত জ্বালাময়ী শুভেচ্ছা রইলো ।
প্রিয় আমি তোমাকে ডায়মন্ডের মত ভালবাসি ।
আমার ভালবাসা E=mc2 এর মত চিরন্তন সত্য ।

তোমার প্রতি আমার এই ভালবাসা স্প্রিং নিক্তির মাধ্যমেও পরিমাপ করা সম্ভব নয় ।

প্রথম যেদিন তোমাকে দেখি সেদিন থেকেই আমার হৃদয়ের ট্রান্সফরমার তোমার হৃদয়েরAc তড়িৎ প্রবাহের জন্য অপেক্ষা করেআছে ।
তোমাকে এক দিন না দেখলে আমার হৃদয় লিফ্ট পাম্পের মত ওঠা নামা করে । বন্ধ হয়ে যায় মানব গিয়ার চাকা ।
যখন তোমাকে দেখি তখন নিজেকে হিলিয়ামের মত হালকা মনে হয় । প্রিয় আমার মনের পিকচার টিউবে শুধু তোমার ছবি ভেসে ওঠে । ওগো আমার আইসক্রিম,, ওগো আমার সোডিয়াম কার্বোনেট ,, তুমি কি আমার মনের হাইড্রোকার্বনের বুদবুদ এর আওয়াজ শুনতে পাও না???
তুমি কি আমার নাইট্রোজেন মিথাইল এর মত ভালবাসা বুঝতে পারোনা???তবে কেন এমন নিষ্ক্রয় গ্যাসের মত আচরন করো !!!

ওগো আমার অক্সিজেন সিলিন্ডার । কার্বন-ডাই-অক্সাইডে ভরা এই পৃথিবীতে তোমার বিশুদ্ধ অক্সিজেন দিয়ে আমাকে বাঁচাও ।
এসো আমরা দুজন আমাদের হৃদয়ের জারণ বিজারণ ঘটিয়ে সমযোজী বন্ধনে আবদ্ধ হই ।
আমাদের প্রেমের ট্রানজিস্টর ও সিলিকন চিপ কোনো দিনও নষ্ট হতে দেবো না।

ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে আমাদের প্রেমে যদি মরিচা পড়ে তবে নতুন করে আমরা গ্যালভানাইজিং এর প্রলেপ দিয়ে আমাদের প্রেমকে চাকচিক্যময় করবো ।
ইতি …………,,, ,, তোমার মজনু,,,

স্বামী কাহিনী

প্রথম প্রতিবেশী : আমার স্বামী ঘুমের ঘোরে কি সব বিড়বিড় করেন। একবার কি তাকে ডাক্তার দেখাবো?

২য় প্রতিবেশি : না না, কখনোই না। চবি্বশ ঘন্টায় তাকে অন্ততঃ একবার কথা বলার সুযোগ দিও তাহলেই সব ঠিক হয়ে যাবে।

২৫বছরেরশিশু  

এক বৃদ্ধ ভদ্রলোক তার ২৫ বছর বয়সের ছেলে সহ ট্রেনে করে বাসায় ফিরছেন ছেলেটা ট্রেনের জানালা দিয়ে আশেপাশের প্রকৃতি দেখছে

ছেলে: (ট্রেনের জানালা দিয়ে তাকিয়ে) “বাবা! কি মজা!দেখো, ট্রেনের বাইরের গাছগুলো সব পিছনের দিকে যাচ্ছে!”

বাবা: (হাসিমুখে) “Yah … Cheers my son …”

ছেলে: (কিছুক্ষণ পর) “বাবা! দেখো, কি সুন্দর পুকুর পুকুরের উপর ছোট্ট ছোট্টপাখিগুলো কোন পাখি, বাবা?”

বাবা: (হাসিমুখে) “ওগুলো মাছরাঙ্গা ……পাখি

ট্রেনে তাদের পাশে এক ভদ্রলোক বসা ছিলো সে চিন্তা করে পাচ্ছে না যে কিভাবে এই ২৫ বছর বয়স্ক ছেলেটা বাচ্চাদের মতো আচরণ করছে, অল্প কিছু দেখেই আনন্দিত হচ্ছে কিছুক্ষন পর বৃষ্টি পড়া শুরু করলো এবং বৃষ্টির কিছু ফোটা এসে ছেলেটার হাতের উপর পড়লো

ছেলে: (খুব খুশি হয়ে) “বাবা!দেখো দেখোবাইরে বৃষ্টি হচ্ছে বৃষ্টির ফোটা আমার হাতের উপর পড়ছে

এমন সময় ভদ্রলোক তার কোতুহুল দমন করতে পারলো না সে তার ছেলেটার বাবাকেবললো, “আপনার ছেলে বয়স হিসেবে যথেষ্ট ইমম্যাচিউর তাকে কেন একজন ভালো ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান না হসপিটালে ডাক্তারদের সাজেশন মতো চললে সে সুস্থ হয়ে যাবে

ছেলেটার বাবা উত্তর দিলো,”আমরা হসপিটাল থেকেই বাসা ফিরছি সে এখন কমপ্লিট সুস্থ তার চোখের অপারেশন হওয়ার পর আজ সে জীবনে প্রথমবারের মতো দেখতে পারছে

পরীক্ষারআগপর্যন্ত       

স্ত্রী তার স্বামীকে বলছে…..

স্ত্রীঃ শোনো, তোমার ছেলে এখন অনেক টাকা খরচ করা শিখে গেছে ওর জ্বালায় কোথাও টাকা লুকিয়ে রাখাও যায় না যেখানেই রাখি খুঁজে বের করে আর মোবাইলে সারাদিন ঘুটুর ঘটুর কি করা যায় বলোতো?

স্বামীঃ এক কাজ কর, তুমি টাকাগুলো ওর পড়ার বইয়ের মধ্যে লুকিয়ে রাখোপরীক্ষার আগ পর্যন্ত নিরাপদ থাকবে তারপর আবার সরিয়ে রাখলেই হবে

চাকুরীরইন্টারভিউ              

চাকরীর ইন্টারভিউ চলছে

ম্যানেজার : আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতার সর্বোচ্চ ডিগ্রি কি?

প্রার্থী : PHD

ম্যানেজার : দারুন ! তা আপনি কোন বিষয়ে ডক্টরেট ?

প্রার্থী : না ….. আসলে PHD মানে Passed Highschool with

Difficulties !! 😛

গরুররচনা           

পিন্টু ইংরেজীতে অনেক দুর্বল একদিন পিন্টু তার স্কুলের ইংরেজী পরীক্ষায় গরুর রচনা লিখেছে

►►► Cow’s Essay ◄◄◄

He is the cow.

He has 4 legs together

2 towards And 2 afterwards

It gives milk which comes from

4 taps attached to the bottom

He is mostly a girl

Its loose motion is very useful,green color.

It has tail situated in d backyard And has hair on it to frighten flies.

Many use it as a vehicle also.

He dies after death…;)

সরকারিদলএবংবিরোধীদল             

ছেলে ,”বাবা সরকার কী“?

বাবা , “আমি ঘর চালাই আমি সরকারী দল তোর মা খালি ঘ্যান ঘ্যান করে তোর মা বিরোধী দল তুই জনগন তোর ছোট বোন মুন্নী দেশের ভবিষ্যত আর কাজের মেয়ে কইতরী শোষিত শ্রেনী

এরপর মামা ফোন করল বাবা ছিল ঘুমিয়ে, মুন্নী কাঁদছে কিন্তু তাকে দেখার কেউ নেই কারন মা ড্রেসিং টেবিলে সাঁজছে কইতরী ঘড় ঝাড়ু দিচ্ছে মামা বলে, “কিরে সবার খবর কি“? ছেলে বলে, “সরকার ঘুমাচ্ছে বিরোধীদল তার সুবিধামত আছে ভবিষ্যত কাঁদছে শোষিত শ্রেনী শোষিত হচ্ছে জনগন তাকিয়ে তাকিয়ে দেখছে

নিউটনেরসূত্র  

একটাছাগলহাঁটছিল, নিউটনএটাকেধরেথামালেনআরতখন

১মসুত্রআবিস্কারহলঃএকটিবস্তুকেযতক্ষণপর্যন্তথামাননাহয়তাচলতেথাকে

এরপরনিউটনছাগলটিকে (F) বলএকটালাথিদিলেনছাগলটাবলেউঠলোম্যা” (MA)

আবিস্কারহলদ্বিতীয়সুত্র: F=MA.

এরপরইছাগলটিনিউটনকেকষেএকটালাথিদিলআরনিউটনআবিস্কারকরলেনতারসবচেয়েগুরুত্বপূর্ণসুত্র!…

আরতাহলঃসকলক্রিয়ারইএকটিসমানবিপরীতমুখীপ্রতিক্রিয়াআছে

 বিয়ে      

স্যার : তুমিবড়হয়েকিকরবে ?

পল্টু : বিয়ে

স্যার : আমিবুঝাতেচাচ্ছিবড়হয়েতুমিকিহবে ?

পল্টু: জামাই

স্যার : আরেআমিবলতেচাচ্ছিতুমিবড়হয়েকিপেতেচাও ?

পল্টু: বউ

স্যার : গাধা,তুমিবড়হয়েমাবাবারজন্যকিকরবে?

পল্টু: বউনিয়েআসবো

স্যার : গর্দভ,তোমারবাবামাতোমারকাছেকিচায় ?

পল্টু: নাতীনাতনী

স্যার : ইয়াখোদাতোমারজীবনেরলক্ষ্যকি ?

পল্টু : বিয়ে

স্যারঅজ্ঞান.

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s