ফেসবুকের মাধ্যমে অনলাইন আয়

আমরা যারা অনলাইনে আয়ের সম্পর্কে শুনেছি, তারা অনলাইন আয় বলতে সাধারণত বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে নিজের কাজগুলোকে বিক্রি করা বা কারোকোনো কাজ করে দেওয়াকে বুঝে থাকি। কিন্তু ইন্টারনেট থেখে আয় শুধু এই একটি বা দুটি পদ্ধতির মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়, বরং অনলাইনে রয়েছে আয়ের আরো অনেক মাধ্যম। এদের মধ্যে বর্তমানে অতিজনপ্রিয় মাধ্যম হল– SMM (Social Media Merketing) এবং এফিলিয়েট মার্কেটিং। আজ আমরা জানবো, কিভাবে এস.এম.এম এবং এফিলিয়েট মার্কের্টিংয়ের এর ব্যবহার করে ফেসবুকের মাধ্যমে আয় করা যায়।

 শুনে একটু অবাক লাগছে। তাই না? আপনাদের মধ্যে অনেকই হয়তো ভাবছেন, ফেসবুকের মাধ্যমে আবার আয় করা যায় নাকি?

 হ্যাঁ। বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সোসিয়াল নেটওয়ার্কিং ওয়েব সাইট, ফেসবুকের মাধ্যমেও রয়েছে আয়ের এক বিশাল সুযোগ। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আপনিও আয় করতে পারেন বিপুল পরিমান অর্থ।

 প্রথমেইজেনেনেইকিকিথাকাপ্রয়োজনঃ

 আপনার একটা ফেসবুক প্রোফাইল, অনেক ফেসবুক বন্ধু এবং ভক্ত। এখানে একটা কথা জেনে রাখা ভাল, আপনার বন্ধুর পরিমান বেশী হলেই যে আপনি আয় করতে পাড়বেন, কথা ঠিক না। কথা হলআপনি আপনার বন্ধুদের মধ্যে বিভিন্ন পণ্যের বিঙ্গাপন দিয়ে আয় করতে হবে। এবার চলুন দেখে নেয়া যাক কি কি পদ্ধতিতে আপনি আয় করতে পারেনঃ

ফ্রিল্যান্সিংমার্কেটপ্লেসগুলোরমাধ্যমেঃ

 বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং সাইট। যেমনঃ ওডেস্ক, ফ্রিল্যান্সার বা অন্যান্য যেকোনো মার্কেটপ্লেসে দেখবেন যে কিছু সংখ্যক কাজ আছে, যেখানে বায়ার বলছে অত সংখ্যক ফেসবুক লাইক বা টুইটার ফোলোয়ার চাই। আপনার ফেসবুকে যদি সমপরিমান লাইক বা টুইটারে যদি সমপরিমান ফোলোয়ার থাকে তাহলে আপনি কাজটা পেতে পারেন। আবার আরো অনেক বায়ার আছে যারা ফেসবুক প্রোফাইল কিনতে চায়। তাদের রিকুয়ারিমেন্ট থাকে যে এত সংখ্যক ফেসবুক বন্ধু চাই। এক্ষেত্রেও আপনার যদি সমপরিমান ফেসবুক বন্ধু থাকে তাহলে আপনি এসব কাজও করতে পারেন। কথা হল আপনার ফেসবুক ফেন্ড এবং লাইক থাকতে হবে। এছাড়াও আরো কাজ পাবেন, যেখানে বলা হয় এত সংখ্যক নতুন ফেসবুক প্রোফাইল চাই। যা খুবই সহজ কাজ।

প্রচারেরমাধ্যমেপণ্যবিক্রয়ঃ

 ফেসবুক হল একটি বিশাল নেটওয়ার্ক। এখানে প্রতি মুহুর্তে লক্ষ লক্ষ মানুষ অনলাইনে থাকে। আর আমরা জানি যে প্রচারেই প্রসার। এক্ষেত্রে আপনার যদি ফেসবুকে অনেক ফেন এবং ফ্রেন্ড থাকে। তাহলে আপনি এদের মধ্যে পণ্য প্রচার করে বিক্রয় করতে পারেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের মাধ্যমেঃ

 বর্তমানে এফিলিয়েট মার্কেটিং খুব বেশী জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। এক্ষেত্রে আপনি কোন কোম্পানীর সেবা বা পণ্যের লিংকসহ তাদের পন্য আপনার ফেসবুক পেজে উল্লেখ করবেন। আর আপনার দেওয়া লিংক থেকে যদি কেউ কোম্পনীর পণ্য কিনে তাহলে আপনি অর্থ পাবেন। আবার অনেক কোম্পানী আছে যাদের লিংকে কেউ ক্লিক করলেই আপনি অর্থ পাবেন। ফেসবুকের ক্যাশক্লিক নামের যে সফটওয়্যার রয়েছে সেটা ব্যবহার করে পিটিসি হিসেবে কাজ করা যায়।

ফেসবুকপ্লাগিনতৈরীকরে‍-

 ফেসবুকের জন্য প্লাগিন তৈরী করেও আপনি অনেক অর্থ আয় করতে পারেন। আর এর জন্য আপনার জানা থাকতে হবে কিছু প্রোগ্রামিং। আর এটা শিখার সবচেয়ে বড় মাধ্যম হল ইন্টারনেট।

নিজেরসাইটেরগ্রাহকবৃদ্ধিঃ

 আপনার যদি নিজস্ব কোনো সাইট থাকে সেখানে আপনি আপনার ফেসবুক ফেসবক্স বসাতে পারেন। আর এর মাধ্যমে আপনার সাইটে ফেসবুক থেকেও গ্রাহক পেতে পারেন।

 শেষকথা– ‍আপনি যদি সত্যিই ফেসবুক থেকে আয় করতে চান। তাহলে আপনার প্রধান হাতিয়ার হল একটা ফেসবুক প্রোফাইল যেখানে অনেক বন্ধু এবং ভক্ত।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s