Device Manager -কি, কেন জেনে নিন ।

উইন্ডোজ কম্পিউটারের একটি গুরুত্বপূর্ণ অপশন হচ্ছে Device Manager। এ Device Manager এর মাধ্যমে পুরো সিস্টেমের ডিভাইস এর তালিকা যেমন পাওয়া যায়, তেমনি সমাধান করা যায় পিসি’র অনেক সমস্যাও। অনেক নতুন ইউজার আছে যাদের এ সম্পর্কে বেশি ধারনা নেই। আজকে এ সম্পর্কে আলোচনা করবো।

Device কি এবং Device Manager এর সাথে এর সম্পর্কই বা কতটুকুঃ

পুরো কম্পিউটার সিস্টেমটা দুই ধরনের ডিভাই দ্বারা গঠিত। একটি ইন্টারনাল অপরটি এক্সটারনাল। এ দুই ধরনের ডিভাইস দ্বারা একটি কম্পিউটার পূর্ণাঙ্গ কম্পিউটারের রূপ পায়।

১। ইন্টারনালঃ ইন্টারনাল ডিভাইসগুলো মাদারবো র্ডের সাথে লাগানো থাকে। এগুলো ছাড়া কম্পিউটার অচল বা বুট হবে না। আপনার অপারেটিং সিস্টেম চালু হওয়ার জন্য কম্পিউটারে এ ডিভাইসগুলো অবশ্য থাকতে হবে এবং তা হতে হবে সমস্যামুক্ত। যেমন প্রসেসর, হার্ডডিস্ক, র‍্যাম, চিপসেট সহ মাদারবোর্ড পরিচালনা করার জন্য অন্যান্য সহযোগী যন্ত্রাংশ। এগুলোর কোনটি বা একাধিক যন্ত্রাংশ নষ্ট হলে কিংবা সমস্যায় ভুগলে আপনার পিসি বুট হবে না কিংবা বুট হলেও তা সঠিকভাবে কাজ করবে না।

২। এক্সটারনালঃ এক্সটারনাল ডিভাইসগুলো বিভিন্নভাবে মাদারবোর্ডের সাথে সংযুক্ত থাকে। তবে কম্পিউটার বুট হওয়ার জন্য বা আপনার অপারেটিংস সিস্টেম রান করার জন্য এগুলো অপরিহার্য কোন যন্ত্রাংশ নয়। সুতরাং এগুলোর অনুপস্থিতি বা এগুলো নষ্ট হয়ে গেলে আপনার কম্পিউটার বুট হতে কোন সমস্যার সম্মুখীন হবে না। তবে আপনি এর সহযোগিতায় যে কাজটি করে থাকেন সেটি করতে পারবেন না। যেমন ল্যান কার্ড, সাউন্ডকার্ড, ভিজিএ (গ্রাফিক্স) কার্ড, মনিটর, সাউন্ড বক্স, মাউস, কী-বোর্ড, সিডি রম, ব্লু-টুথ, ওয়েব ক্যাম ইত্যাদি। উল্লেখিত ডিভাইসগুলোর কোন একটি বা সবকটি অনুপস্থিত থাকলে কিংবা নষ্ট হয়ে গেলে আপনার কম্পিউটার বুট হতে কোন সমস্যা হবে না। তবে কী-বোর্ড না থাকলে বুট করার সময় পিসি আপনাকে প্রশ্ন করতে পারে কী-বোর্ড অনুপস্থিত, সামনে অগ্রসর হবেন কি না। সে ক্ষেত্রে আপনি উত্তর দেয়ার মাধ্যম পাবেন না। কিন্তু সবকিছু মিলিয়ে এটাই বলা যায় যে এগুলো সিস্টেম বুট হতে কোন গুরুত্ব বহন করে না।

 উপরোক্ত দুই ধরনের ডিভাইসের মধ্যে এক্সটারনাল ডিভাইসগুলো লিস্ট আকারে থাকে Device Manager এ। এছাড়াও যখন কোন ডিভাইস পিসি’তে সংযোগ লাগানো হয় তখন তা Device Manager এ লিস্টেড হয়। যতক্ষণ Device Manager এ লিস্টেড হবে না বা Show করবে না ততক্ষণ ডিভাইসটি কাজ করবে না। যেমন USB। সুতরাং আপনার পিসি’তে কি কি ডিভাইস বর্তমানে লাগানো আছে তার লিস্ট বা তালিকা যদি দেখতে চান আপনি Device Manager ই দেখবেন।

ইন্টারনাল ডিভাইসগুলো না থাকলে বা নষ্ট হয়ে গেলে যেহেতু আপনার পিসি খুলবেই না তাই সেগুলো ভাল আছে কি খারাপ আছে, কিংবা কাজ করছে কি করছে না তা জানার জন্য কোন প্রশ্নের উত্তর আপনার দরকার নেই। কিন্তু এক্সটারনাল ডিভাইসুগুলো কাজ করছে কি করছে না, বা কাজ না করলে কিভাবে তা সমাধান করতে হবে সে বিষয়ে আপনাকে পুরোপুরি সাহায্য করবে Device Manager।

আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ কথা হলো প্রত্যেকটি ডিভাইস সঠিকভাবে কাজ করার জন্য প্রয়োজন এর জন্য সঠিক ড্রাইভার যা ডিভাইসটির প্রস্তুত কারক কোম্পানি তৈরি করে থাকে। যেকোন অপারেটিংস সিস্টেমের মধ্যে সব ইন্টারনাল এবং একাধিক এক্সটারনাল ডিভাইস এর ড্রাইভার যুক্ত করা থাকে। তাই এগুলো পিসি’তে কানেক্ট করা মাত্রই সংযোগ পায়। এগুলোকে Plug & Play ডিভাইস বলে। যেমন যেকোন ইউএসবি, মাউস, কী-বোর্ড ইত্যাদি। বাকিগুলো কোম্পানির সিডি এবং সর্বশেষ নেট থেকে সংগ্রহ করতে হয়। ড্রাইভার হলো এক ধরনের সফটওয়ার যা ঐ ডিভাইসটাকে পরিচালনা করে থাকে। যেমন গ্রাফিক্স বা ভিজিএ ড্রাইভার এর কারণে মনিটরের রেজ্যুলেশন বাড়ানো কমানো যায়। সাউন্ড ড্রাইভারের মাধ্যমে সাউন্ড ছোট বড় বা এর বিভিন্ন প্রকার করা যায়। এভাবে প্রত্যেকটি ড্রাইভার কাজ করে থাকে।

Device Manager এর মাধ্যমে সমস্যা সানক্তকরণ ও সমাধানঃ

আমরা আগেই বলেছি এর Device Managerমাধ্যমে শুধু এক্সটারনাল ডিভাইস এর সমস্যা সমাধান করবো। My Computer>Manage>Device Manger এ যান। নিচের মত চিত্রে Device Manager আসবে।

ওখানে দেখুন আপনার পিসিতে লাগানো সব এক্সটারনাল ডিভাইস এর তালিকা দেখা যাচ্ছে (হার্ডডিস্ক বা প্রসেরের মত কিছু ইন্টারনাল ডিভাইস এর লিস্টও থাকতে পারে)। কোন ডিভাইস যখন কাজ করবে না তখন এগুলো দুটি রঙে হাইলাইট করা থাকবে। একটি লাল রং অন্যটি হলুদ রং।

লাল রঙঃ যখন লাল রং করা থাকবে তখন বুঝে নেবেন এটি ডিজেবল করা আছে। আপনি ঐ ডিভাইসটির উপর রাইট ক্লিক করে এনাবল করে দিলে কাজ শুরু করে দেবে।

অথবা রাইট ক্লিক করে Properties এ গেলে মেসেজ দিয়ে জানিয়ে দেবে লাল রঙ এর কারণ কি। সমাধানও দেয়া থাকবে ওখানে। সমাধানটা পড়ে সে অনুযায়ী কাজ করলে তখন ডিভাইসটি কাজ শুরু করবে।

শুধু তাই না আপনি Properties থেকে Details এ গিয়ে ডিভাইসটির আইডি পর্যন্ত বের করে ফেলতে পারেন যার মাধ্যমে ডিভাইসটির Manufacture সহ বিস্তারিত তথ্য পাবেন গুগলের সাহায্যে। এটি আপনাকে অনলাইনে কোন ডিভাইসের সঠিক ড্রাইভার খুঁজে পেতে সহায়তা করবে।

হলুদ রঙঃ যখন হলুদ রং করা থাকবে তখন কয়েকটি কারণ হতে পারে। যেমন ডিভাউসটিকে Safely Remove করা হয়েছে কিন্তু এখনো পিসি’র সাথে লাগানো আছে। সেক্ষেত্রে ডিভাইসটি খুলে আবার লাগালে কাজ করবে বা Properties এ গিয়ে কারণ ও প্রতিকার দেখতে হবে। যেমন ইউএসবি বা পেনড্রাইভ।

আরেকটি কারণ হলো ডিভাইসটির ড্রাইভার কাজ করছে না সঠিক ড্রাইভারটি ইনস্টল করা হয়নি। হলুদ রঙের ক্ষেত্রে এ কারণটাই হয়ে থাকে বেশি। আপনি ডিভাইসটি’র উপর রাইট ক্লিক করে Properties এ গিয়ে কারণ ও প্রতিকার দেখতে পারেন। অথবা ডিভাইসটি’র উপর রাইট ক্লিক করে সরারসরি Update Driver… এ ক্লিক করবেন। এখানে Update Driver মানে হলো আপনি সঠিক ড্রাইভারটি নতুনভাবে ইনস্টল/সেটাপ করবেন। Update Driver দিলে দুটি অপশন আসতে পারে। একটি হলো Automatic Install অন্যটি Manual। দুটি ক্ষেত্রেই প্রয়োজনীয় ড্রাইভারটি পিসি’র কোন এক জায়গা থাকতে হবে। যেমন সিডিরমে সিডি দিয়ে, পেনড্রাইভ দিয়ে কিংবা হার্ডডিস্কের কোন ড্রাইভে/ফোল্ডারে। Automatic Install এর মানে হলো উইন্ডোজ খুঁজে দেখবে সঠিক ড্রাইভারটি কোথায় আছে এবং পেলে আপনাকে জানাবে বা সে নিজে নিজে ইনস্টল করে ফেলবে। এতে একটু বেশি সময় লাগতে পারে। আর Manual হল Next বা এরকম Instruction গুলো অনুসরণ করে সঠিক ড্রাইভারটি কোথায় আছে তা আপনাকেই দেখিয়ে দিতে হবে। এতে সময় কম লাগে। যেমন সিডি রমে যদি থাকে তাহলে আপনি ব্রাউজ করে ড্রাইভারটি দেখিয়ে OK, Next ইত্যাদি যা দরকার হয় দেবেন।

এছাড়া আরো একটি অপশন হল অনলাইন থেকে সরাসরি ইনস্টল। এ ক্ষেত্রে Windows7 দারুন কাজের। ড্রাইভারটি পিসিতে থাকলে নিজে নিজেই ইন্সটল করে ফেলে এবং অনলাইন থেকে খুব দ্রুত সময়ে খুঁজে নিতে পারে যা এক্সপি পারে না।

হলুদ রঙ থাকলে আরেকটি ব্যাপার হল, আপনি যখন এক্সপি ইউজার হবেন তখন Found New Hardware Wizard মেসেজটি পেতে পারেন।

এ মেসেজটি পেলেই আপনি নিশ্চিত হতে পারেন যে কোন ডিভাইস পিসি’তে লাগানো আছে কিন্তু এ ড্রাইভারটি ইন্সটল করা নেই। মেসেজটি থেকে রক্ষা পেতে হলে হয় ডিভাইসটি খুলে ফেলবেন, না হয় ড্রাইভারটি ইন্সটল করবেন। তবে Windows7 এ মেসেজটি দেয় না।

Device Manager এ যদি কোন ডিভাইস দেখা না যায় তাহলে ধরে নেবেন ডিভাইসটি পিসি’র সাথে লাগানো আছে ঠিকই কিন্তু মাদারবোর্ড এর সাথে যুক্ত নেই। এর কারণ হতে পারে ক্যাবল নষ্ট বা ক্যাবল ভালভাবে লাগেনি। অথবা ডিভাইসটি নষ্ট হয়ে গেছে।

সুতরাং কোন Device কাজ করছে না মানেই Device Manager দেখতে হবে।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s