পিসির গতি বাড়ানোর উপায়

অনেকেই অভিযোগ করে থাকেন, পিসি কিছুদিন পরপর অস্বাভাবিক ধীরগতিসম্পন্ন হয়ে যাচ্ছে। কোনো কাজই ঠিকভাবে সম্পন্ন করা যায় না। পিসি হ্যাং হয়ে যায় এবং সেইসঙ্গে ধীরগতি তো রয়েছে। এর ফলে ব্যবহারকারীর মেজাজ বিগড়ে যায়। তবে হার্ডওয়্যারের সমস্যা, যেমন—র্যাম, পাওয়ার ইউনিট, মাদারবোর্ড ইত্যাদিতে কোনো সমস্যা না হলে সচেতনতা ও কৌশল প্রয়োগের মাধ্যমে এ ধরনের সমস্যার সমাধান করা যায় সহজেই।

স্টার্টআপ প্রোগ্রামে শুরুতেই সময় ক্ষেপণ
কম্পিউটার ওপেন করে দ্রুত জরুরি কাজ সারবেন। এমন সময় দেখলেন কম্পিউটার স্টার্ট হওয়ার পর অনেক সময় নিচ্ছে। সাধারণত কম্পিউটার চালু করার সঙ্গে যেসব প্রোগ্রাম স্বয়ংক্রিয়ভাবে চলে আসে, তাতে শুরুতেই কিছু সময় লাগে বটে। যদি অনেক প্রোগ্রাম স্টার্টআপের সময় আসে সেক্ষেত্রে মনে হওয়া স্বাভাবিক কম্পিউটারটি যথেষ্ট ধীরগতিসম্পন্ন। এজন্য একান্ত প্রয়োজনীয় ছাড়া অন্য কোনো প্রোগ্রাম স্টার্টআপের সময় চলতে না দেয়া বুদ্ধিমানের কাজ। এক্ষেত্রে অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম ডিজেবল করে রাখা ভালো। এজন্যে কী করবেন? নিম্নলিখিত পদ্ধতি অনুসরণ করুন।
১. স্টার্ট মেনু থেকে জঁহ-এ ক্লিক করে সংপড়হভরম লিখে এন্টার চাপুন।
২. একটি উইন্ডো চলে আসবে। এখানে Startuঢ় ট্যাব নির্বাচন করুন।
৩. যেসব প্রোগ্রাম শুরুতেই আসার প্রয়োজন নেই, সেগুলোর টিক চিহ্ন উঠিয়ে দিন এবং ঙক চাপুন।
৪. এবার কম্পিউটারটি রিস্টার্ট দিন। কম্পিউটার রিস্টার্ট হওয়ার পর System Configuration Utility একটি উইন্ডো চলে আসে। এই অপশন নির্বাচন করে ঙক বাটনে ক্লিক করুন। ফলে অতিরিক্ত সময় ক্ষেপণ আর হবে না।

নতুন সফটওয়্যার ইনস্টলে সচেতনতা
কিছু ব্যবহারকারী রয়েছেন যারা নতুন নতুন সফটওয়্যারের সন্ধান পেলে উল্লসিত হয়ে কিছু বুঝে ওঠার আগেই ইনস্টল করা শুরু করেন। এতে অনেক সময় হিতে বিপরীত ঘটে যেতে পারে। বেশিরভাগ ফ্রি সফটওয়্যারে স্পাইওয়্যার, ভাইরাস লুকিয়ে থাকে। ইনস্টল করার সঙ্গে সঙ্গে এইসব অনাকাঙ্ক্ষিত প্রোগ্রাম কম্পিউটারের অভ্যন্তরে কাজ শুরু করে দেয়। তাছাড়া যত বেশি সফটওয়্যার ইনস্টল করবেন, ততই কম্পিউটার ধীরগতিসম্পন্ন হবে হার্ডডিস্কের সিস্টেম ড্রাইভে বেশি লোড হতে থাকার কারণে এবং রেজিস্ট্রিতে বাড়তি চাপ আসার ফলে। এক্ষেত্রে সমাধান সম্ভব কেবল অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম আনইনস্টল করার মাধ্যমে। কন্ট্রোল প্যানেল থেকে এ কার্যক্রম শুরু করুন।

ভাইরাস থেকে সাবধান
যে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত প্রোগ্রাম বা ভাইরাস থেকে আপনার কম্পিউটারকে সুরক্ষিত রাখলে হলে একটি ভালো অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রাম ব্যবহার করা উচিত। এক্ষেত্রে লাইসেন্স করা অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রাম ব্যবহার করাই শ্রেয়। তবে এটা সম্ভব না হলে একটি ভালো অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রামের ফ্রি সংস্করণ ব্যবহার করা যেতে পারে।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s