নিজের ব্লগ নিজেই তৈরি করুন

প্রতিদিনের কত দুঃখ, কত আনন্দ মনের কোণে লুকিয়ে রাখা; কত অপ্রকাশিত কথা। ইন্টারনেটের যুগে মনের কথা সবার কাছে প্রকাশের মাধ্যম হিসেবে অনেকেই বেছে নেন বিভিন্ন কমিউনিটি ব্লগ। সেখানে থাকে একঝাঁক নিবেদিতপ্রাণ পাঠক, যাদের আলোচনা-সমালোচনায় লেখকের কলম খুঁজে পায় সার্থকতা। তার পরও অনেক লেখক চান নিজের একটি ব্লগসাইট। সেটা সাজিয়ে নিতে চান নিজের মতো করেই। কিন্তু ডোমেইন-হোস্টিং জোগাড়, সেগুলোর খরচ, কারিগরি দক্ষতা—সব মিলিয়ে সবার পক্ষে নিজের ব্লগসাইট চালু করা সম্ভব হয় না। এত সব সমস্যার সমাধান দিতেই গড়ে উঠেছে বিনা মূল্যের বিভিন্ন ব্লগসাইট, যেখানে আপনি পেতে পারেন একান্ত নিজের ব্লগ। এ রকম কিছু ব্লগসাইট নিয়ে এই আয়োজন।

ব্লগার

কোনো ধরনের কারিগরি দক্ষতা ছাড়াই এই সাইটের মাধ্যমে আপনি তৈরি করতে পারবেন নিজের একটি ব্লগ। অনেক ধরনের নমুনা (টেমপ্লেট) থেকে বেছে নিতে পারবেন আপনার পছন্দের ডিজাইন। আবার সেটিকে নিজের মতো করে সম্পাদনাও করতে পারবেন। আর এসবের জন্য আপনাকে কোনো ধরনের প্রোগ্রামিং ভাষা জানতে হবে না। ব্লগে লেখা প্রকাশ করার জন্য আছে বিভিন্ন সুবিধাসহ একটি রিচ টেক্সট এডিটর, যেখানে আপনি লেখা সম্পাদনা করতে পারবেন, ভবিষ্যতে প্রকাশের জন্য তা সংরক্ষণ করতেও পারবেন। মোটকথা, পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ থাকবে আপনার হাতে। ব্লগারের আরেকটি সুবিধা হলো, আপনি যদি আগে থেকেই গুগলের সেবা ব্যবহার করে থাকেন, তো আপনাকে নতুন করে অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে না। গুগলের অ্যাকাউন্ট দিয়ে একাধিক ব্লগ খুলতে পারবেন। শুধু ব্লগ সাইটটির নাম নিবন্ধন করে নিতে হবে। তবে আপনার ব্লগটি নিজস্ব ডোমেইনেও স্থাপন করতে পারবেন। এর জন্য আপানকে পকেট থেকে গুনতে হবে বার্ষিক ১০ ডলার। এর অপর নাম ব্লগস্পট।

ঠিকানা: http://www.blogger.com

ওয়ার্ডপ্রেস

চলতি বছরের ডয়েচে ভেলের দ্য ববস সেরা বাংলা ব্লগের তালিকায় প্রথম স্থান অর্জনকারী ডা. নিয়াজের ব্লগটি ছিল ওয়ার্ডপ্রেস ডট কম। ঘটা করে ডট কম বলার যথেষ্ট কারণ আছে। ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ দুই ধরনের হয়। এর মধ্যে শুধু ওয়ার্ডপ্রেস ডট কম বিনা মূল্যে ব্লগ তৈরির সুবিধা দেয়। ওয়ার্ডপ্রেসের রয়েছে উন্নত মানের খেরোখাতা, যেখানে আপনি আপানর ব্লগটির পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ হাতে পাবেন। ওয়ার্ডপ্রেস ডট কমে ব্লগারের মতো সহজে টেমপ্ল্যাট সম্পাদনা না করা গেলেও পাবেন এক গাদা টেমপ্ল্যাট, যেখান থেকে বেছে নিতে পারবেন আপনার পছন্দেরটি। তবে নির্দিষ্ট ফির বিনিময়ে অতিরিক্ত সুবিধা পাওয়া যাবে।
ঠিকানা: http://www.wordpress.com

লাইভ জার্নাল

লাইভ জার্নাল একই সঙ্গে ব্লগিং প্লাটফর্ম এবং সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইট। এখানে আপনি দুটি স্বাদই পাবেন। তবে এখানে অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগের সাইটে প্রকাশিত লেখাগুলো (পোস্ট) ভাগাভাগি করার সুযোগ থাকছে না, সেই সঙ্গে থাকছে না ছবি কিংবা ভিডিও প্রকাশ করার সুবিধা।
ঠিকানা: http://www.livejournal.com

উয়িবলি

উয়িবলি একসময় টাইম ম্যাগাজিন-এর সেরা ৫০টি ওয়েবসাইটের একটি ছিল। কোনো রকম প্রোগ্রামিং ভাষা না জেনে চিত্রভিত্তিক খেরোখাতার মাধ্যমে এখানে ব্লগ প্রকাশ করা যায়। ছোটখাটো ওয়েবসাইট তৈরিতেও উয়িবলি বেশ উপযোগী।
ঠিকানা: http://www.weebly.com

ব্লগ

এটি মূলত ওয়ার্ডপ্রেস চালিত একটি সেবা। তবে সুবিধার কথা, এখানে অনেক প্রিমিয়াম টেমপ্লেট এবং প্লাগ-ইন ব্যবহার করা যায়, যা ওয়ার্ডপ্রেস ডট কমে একটি নির্দিষ্ট ফির বিনিময়ে পাওয়া যেত। তবে এখানে তুলনামূলকভাবে বেশি বিজ্ঞাপন দেখায় এবং বিনা মূল্যে তথ্য ধারণক্ষমতা ২ গিগাবাইট। ঠিকানা: http://www.blog.com

টাম্বলর

টাম্বলর প্রধানত খুদে ব্লগ রাখার জায়গা। এতে লেখার পাশাপাশি মাল্টিমিডিয়া উপাদান প্রকাশের জন্য রয়েছে বিশেষ সুবিধা। অন্যান্য ব্লগসাইটের প্লাটফর্মের সঙ্গে টাম্বলরের পার্থক্যটা এখানেই। চিত্রশিল্পী এবং আলোকচিত্রীদের বিশেষ পছন্দের এই টাম্বলর একই সঙ্গে একটি সামাজিক যোগাযোগের সাইটও বটে।
ঠিকানা: http://www.tumblr.com

পোস্টেরাস

একদম নতুন ব্লগারদের জন্য পোস্টেরাসের রয়েছে বেশ ভালো মানের সেবা। খুব সহজেই ব্লগ তৈরি এবং রক্ষণা-বেক্ষণ করা গেলেও সমস্যার কথা সহজে ডিজাইন সম্পাদনা করা যায় না। তবে ই-মেইল, এমনকি খুদেবার্তার মাধ্যমেও ব্লগে প্রকাশ করার সুবিধা পোস্টেরাসে আছে।
ঠিকানা: www.posterous.com

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s